আজ ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ , ৪:২৬ অপরাহ্ণ
ব্রেকিং নিউজ
সর্বশেষ খবর
আড়াইহাজারে ফ্যাক আইডি দমনে শুরু হচ্ছে পুলিশের এ্যাকশন সাংবাদিক নয়নের মৃত্যুতে আড়াইহাজার রিপোর্টার্স ক্লাবের শোক নায়ক শাকিব খানকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা অবশেষে ভেঙে গেল লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি চার জেলায় হঠাৎ বাস চলাচল বন্ধ

মাতুয়াইলের মা ও শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট পরিদর্শনে প্রতিমন্ত্রী


০৫ জুলাই ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৯:৩৪  পিএম

সময় নারায়ণগঞ্জ


মাতুয়াইলের মা ও শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট পরিদর্শনে প্রতিমন্ত্রী

 স্টাফ রিপোর্টার     মাতুয়াইলের মা ও শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও নারায়ণগঞ্জে জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় পরিদর্শন করেছেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক। বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রতিমন্ত্রী আকস্মিক পরিদর্শনে আসেন।

এ সময় তিনি মা ও শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিটিউট ও জেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও ডাক্তারদের সঙ্গে কথা বলেন। নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যলয়টি সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি এলাকায় অবস্থিত। বর্তমানে দুটি প্রতিষ্ঠানই ওই জায়গার মালিকানা দাবি করায় জটিল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়টি সরেজমিন দেখতে প্রতিমন্ত্রী এ দু’টি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে আসেন।

প্রতিমন্ত্রী পরিদর্শনে এসে কার্যালয় দু’টি ঘর ঘুরে দেখেন। পরে পরিবার পরিকল্পনা অফিসে বসে স্থানীয়দের নানা অভিযোগ শোনেন। স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, আশেপাশে কোন হাসপাতাল না থাকায় এই দুটি প্রতিষ্ঠানেই সাধারণ মানুষ সেবা নিতে ছুটে আসেন। কিন্তু এখানে সেবা নিতে আসলে প্রায় সময় ডাক্তার থাকেন না। কোন সময় ডাক্তার থাকলেও ওষুধ পাওয়া যায় না। যার ফলে সেবা নিতে এসে রোগীরা চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এসব সমস্যা পরিত্রাণের জন্য প্রতিমন্ত্রীর কাছে স্থানীয়রা এখানে একটি আধুনিক ও মডেল হাসপাতালের নির্মাণের দাবি জানান। স্থানীয়দের দাবীর প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহেদ মালিক মন্ত্রণালয়ে এ ব্যাপারে আলোচনা করা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ডা: জাহাঙ্গীর আলম প্রধান জানান, জালকুড়িতে ১৯৭৬ সালে জাইকার অর্থায়নে এবং পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের অধিনে জেডপিজি (জিরো পপুলেশন গ্রোথ) নামক একটি প্রজেক্ট চালু হয়। যার জন্য স্থানীয় দানশীল ব্যক্তিরা জায়গা দান করে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরকে। সেই প্রজেক্ট ১৯৮২ সাল পর্যন্ত চালু থাকে। পরবর্তীতে এখানে জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় গড়ে তোলা হয় এবং সাধারণ মানুষদের পরিবার পরিকল্পনার যাবতীয় সেবা প্রদান করা হয়।

পরে মাতুয়াইলে মা ও শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের কাজ শুরু হয় ১৯৯৪ সালে। সেই সময় তারা শর্ত সাপেক্ষে আমাদের এখানে জায়গা নিয়ে কাজ শুরু করে। পরবর্তীতে যখন তাদের ওই ইনস্টিটিটিউট চালু হয় তখনও তারা এখানেই থেকে যায়। বর্তমানে এই জায়গাটি তাদের বলে দাবী করছে। মুলত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে মাতুয়াইলের ওই ইনস্টিটিউটটি। আর আমাদের এই পরিবার পরিকল্পনা কার্যলয়টি পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের অধীনে। আর এ দুটো দপ্তরই স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে। আর সেজন্যই মাননীয় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী আমাদের এই কার্যালয়টি পরিদর্শন করতে এসেছেন।

সময় নারায়নগঞ্জ.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:

শহরের বাইরে -এর সর্বশেষ